এনআরএস কান্ডে এপিডিআর এর পক্ষ থেকে আজ শুক্রবার জারি করা হল একাধিক দাবী সম্বলিত একটি প্রেস রিলিজ

0
A press release consisting of multiple demands has been issued on behalf of the APR by the APR on Friday.

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : এনআরএস কাণ্ডে আজ ১৪ই জুন শুক্রবার গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষার সমিতি যথা Association of Protection of Democratic Rights (apndr) পক্ষ একটি প্রেস রিলিজ জারি করা হয়। সেটি হল নিম্নলিখিত :
এনআরএস হাসপাতালে রোগীমৃত্যু এবং তারপর চিকিৎসক নিগ্রহকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে পশ্চিমবঙ্গে এক ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। গত কয়েক বছর ধরে ডাক্তারদের উপর শারীরিক আক্রমণ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। প্রশাসন নির্বিকার। দোষীদের শাস্তি না হওয়ায় রোগীমৃত্যুর সব দায় ডাক্তারদের উপর চাপিয়ে দেওয়ার প্রবণতা বাড়ছে। আড়ালে চলে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালে উপযুক্ত পরিকাঠামো ও পর্যাপ্ত চিকিৎসক না থাকার সরকারি অব্যবস্থার মূল সমস্যার প্রশ্নটি। নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন চিকিৎসকেরা। এর দায় প্রশাসনের। দীর্ঘদিন ধরে তাঁদের দাবি নিয়ে সরকার কোনো সদর্থক উদ্যোগ না নেওয়ায় চিকিত্সকেরা দলমতনির্বিশেষে আন্দোলনের রাস্তায়। আন্দোলনের ফলে বন্ধ সরকারি চিকিৎসা পরিষেবা। কোথাও কোথাও জরুরি পরিষেবাও। বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে চিকিৎসা না পাওয়ায়। সহমর্মিতা ও সরকারি দায়বদ্ধতা নিয়ে আন্দোলনরত ডাক্তারদের সাথে কথা বলে, তাঁদের দাবির সুষ্ঠু সমাধানের চেষ্টা করলে এই অচলাবস্থা এড়ানো যেত। সাধারণ মানুষের দুর্দশা কমত। তার পরিবর্তে আন্দোলন তুলে নেওয়ার জন্যে হুমকি, চাপ, ESMA প্রয়োগের ইঙ্গিত পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলেছে। এ ব্যাপারে বর্তমান রাজ্য সরকারও ১৯৮০র দশকের জুনিয়ার ডাক্তার আন্দোলনের সময় বামফ্রন্ট সরকারের সেই দমননীতিরই অনুসারী। কিন্তু তা ব্যর্থ হতে বাধ্য।
এই পরিপ্রেক্ষিতে এপিডিআর দাবি করছে,
১) রাজ্য সরকারকে অবিলম্বে আন্দোলনকারীদের সাথে কথা বলে তাদের দাবি নিয়ে সরকারি উদ্যোগ নিশ্চিত করতে হবে।
২) ESMA জারি কিংবা প্রশাসনিক বা দলীয় সন্ত্রাস দিয়ে আন্দোলন দমন করার চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে হবে।
৩) হাসপাতালে হাসপাতালে যেমন রোগী কল্যাণ সমিতি আছে, তেমনি ভাবে রোগী-চিকিৎসক সমন্বয় গড়ে তুলে এবং সরকারি ও অসরকারি স্তরে সামাজিক প্রচার চালিয়ে নিম্নগামী রোগী-চিকিৎসক সম্পর্কের ও চিকিৎসা পরিকাঠামোর উন্নতিসাধনের চেষ্টা করা হোক।

[আরও খবর পড়ুন :   জুনিয়র ডাক্তার দের কর্মবিরতির শিকার এক তিন দিনের সদ্যজাতকের, চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু শিশুটির ]

 

জুনিয়ার ডাক্তারদের আন্দোলন ও দাবিগুলিকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে এবং তাঁদের আন্দোলনের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে, সাধারণ মানুষের দুর্গতির কথা ভেবে আন্দোলনরত চিকিৎসকদের কাছে আবেদন: আপনারা জরুরি চিকিৎসা পরিষেবা আবার চালু করুন। সাধারণ মানুষ আপনাদের উপর নির্ভরশীল এবং তারা অসহায়। কোনো মুমূর্ষু রোগীই যেন বিনা চিকিৎসায় ফিরে না যান, সেটা আপনারা নিশ্চিত করুন। সাধারণ মানুষ আপনাদের আন্দোলনের পাশে থাকবেন।