পিছিয়ে পড়া সমাজকে মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে আল-আমীন মিশন ও BRGMTWA এর বিশেষ উদ্যোগে

0

নিজস্ব প্রতিবেদক,টাইমস বাংলা,কলকাতাঃ সমাজে একটা শ্রেণী দারিদ্রতার কারনে, শিক্ষার অভাবের কারনে এবং শারীরিক প্রতিবন্ধকতার কারনে পিছিয়ে পড়ে আছে সমাজের স্রোত থেকে। এই পিছিয়ে পড়া মানুষ গুলিকে স্বপ্ন দেখাতে, তাঁদের সুপ্ত মেধার বিকাশ ঘটাতে ও মুখে হাসি ফোটাতে কিছু মানুষ ও সংগঠন নিরলস প্রচেষ্টা ও সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। সেই রকমই একটি সংগঠন বাংলা রেডিমেড গারমেন্টস ম্যানুফ্যাকচারর্স এন্ড ট্রেডার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েসান-এর উদ্যোগে এবং আল-আমীন মিশন,পাঁচুড় এর সহযোগিতায় ৩০ –এ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হল একগুচ্ছ সমাজ সেবামূলক কর্মকাণ্ড। এই অনুষ্ঠানে কর্মকাণ্ড গুলি হল রক্ত দান শিবির, কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের সংবর্ধনা প্রদান ও শ্রবন প্রতিবন্ধী শিশুদের শ্রবনযন্ত্র প্রদান।
আল-আমীন উৎসব ২০১৯ এর উদ্বোধনী ভাষণে মিশনের প্রাণপুরুষ জনাব নুরুল ইসলাম কি বার্তা দিলেন দেখুন:

আল-আমীন মিশন সম্পর্কে সকলেই অবগত যে আল-আমীন ৩৩ বছর ধরে সমাজে একটি নীরব বিপ্লব ঘটিয়ে যাচ্ছে। যে বিপ্লবে ফল সরূপ সমাজের পিছেয়ে পড়া মানুষগুলি ফিরে আসছে মূল স্রোতে, স্বপ্ন দেখছে গরীব পরিবারগুলি ও দারিদ্র পরিবারের সন্তানটির মেধার বিকাশ ঘটছে , বিকাশ ঘটছে মানব সম্পদেরও। আল-আমীন তাঁর দীর্ঘ ৩৩ বছর অতিক্রান্ত পথে পশ্চিমবঙ্গের কোণায়-কোণায় ছড়িয়ে দিয়েছে আল-আমীন মিশনের শাখা। বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়িয়েও ভারতের অন্যান্য রাজ্যেও এখন আল-আমীন।
পশ্চিমবঙ্গের-ই একটি অন্যতম শাখা কোলকাতার সন্তোষপুর বড়তলা লিঙ্ক রোড-এর উপর প্রতিষ্ঠিত আল-আমীন মিশন,পাঁচুড় শাখা। এই মিশন কাম্পাসে-ই অনুষ্ঠিত হল বিভিন্ন সমাজসেবা মূলক কর্মকাণ্ড ও মিশনের বর্তমান-প্রাক্তনীদের মিলন উৎসব। সকাল ১০.৩০-এ শুরু হয়েছিল রক্তদান শিবির। প্রায় ১০০ জন রক্ত দান করেন, যার মধ্যে মিশন ছাত্রদের সংখ্যা ছিল লক্ষণীয়। দুপুর ২.৩০-এ শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। স্বাগত ভাষণ দেন বাংলা রেডিমেড গারমেন্টস ম্যানুফ্যাকচারর্স এন্ড ট্রেডার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েসান-এর সম্পাদক জনাব আলমগির ফকির সাহেব। তিনি বলেন, “যারা অর্থের অভাবে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারেন না, সেই সমস্ত দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আমরা পাঁচুড়ে একটি এডুকেশন সোসাইটি গঠন করেছি। যে সোসাইটি দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে।

আল-আমীন উৎসবে অধ্যাপক উজ্জ্বল কে চৌধুরীর যে বক্তব্য আপনার জীবন বদলে দিতে পারে:

আল–আমীন প্রাণপুরুষ বলে পরিচিত, আল-আমীন মিশনের সাধারন সম্পাদক জনাব এম নুরুল ইসলাম সাহেব উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের বলেন, “ আমদের প্রত্যেকের মধ্যে একটি নিজ নিজ আওয়াজ আছে, সেই আওয়াজটিকে শোনো সে কি বলতে চায়? আর নিজের মেধার বিকাশ ঘটাও, দেখবে সমাজকে অনেক কিছু দিতে পারবে।” এছাড়াও তিনি বলেন “মা’য়ের গর্ভে যখন শিশু থাকে তখন মা কে শিক্ষা দাও; মা –এর রক্ত যেমন শিশুর খোরাক জোগায়, ঠিক তেমনি মায়ের মেধাও শিশুর মেধা জোগায়।“
“ কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা প্রদান করেন প্রাক্তন WBCS(Exe) অফিসার সৈয়দ নাসিরুদ্দিন সাহেব ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক অমিয় বাগচি। শ্রবন প্রতিবন্ধী শিশুদের শ্রবণযন্ত্র প্রদান করেন কর্ণ বিশেষজ্ঞ ডঃ অরুপ অধিকারী। ডঃ অরুপ ছাত্রদের উজ্জীবিত করে বলেন, “ তুমি কি হবে তা ছাত্র জীবনে সিধান্ত নাও। ছাত্র জীবনে তুমি যা সিধান্ত নেবে কর্ম জীবনে তাই প্রতিফলিত হবে। “ এছাড়াও তিনি বলেন, “ শারীরিক প্রতিবন্ধীদের অবহেলা না করে চিকিৎসা করলে ও গুরুত্ব দিলে তারাও একটি ভালো জীবন পেতে পারে। “