আগামী সপ্তাহের মধ্যে স্বরূপনগর ব্লকের প্রতিটি গ্রামে ফিরবে বিদ্যুৎ, আশ্বাস বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্তাদের

0

নিজস্ব প্রতিনিধি,টাইমস্ বাংলা,স্বরুপনগর : ঘূর্ণিঝড় আমফানে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ বসিরহাট মহকুমা অঞ্চল। ঝড়ের পর দু সপ্তাহ কেটে গেলেও এখনো বিদ্যুৎ পৌছায়নি মহকুমার একাধিক ব্লকে। তার মধ্যে অন্যতম স্বরূপনগর ব্লক। এই ব্লকের অধীনে ১০ টি গ্রাম পঞ্চায়েত রয়েছে। তিনটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা এখনো পর্যন্ত পুরো অন্ধকারে। একটিতে সামান্য অংশে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া সম্ভব হয়েছে। শনিবার স্বরূপনগর, কাটিয়াহাট সাবস্টেশনের বিদ্যুৎ দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বরুপনগর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, সহকারী সভাপতি, কর্মাধ্যক্ষ সহ পদাধিকারীরা। উপস্থিতি ছিলেন স্বরূপনগরের বিডিও, স্বরূপনগর থানার ওসি।

বৈঠকের পর স্বরূপনগর পঞ্চায়েত সমিতির সহকারি সভাপতি হাবিবুর রহমান বলেন, “বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্তারা আশ্বাস দিয়েছেন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে স্বরূপনগর ব্লকের প্রতিটি এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ পুন:স্থাপিত হবে। ইতিমধ্যেই টিপুল মির্জাপুর, স্বরূপনগর বাংলানি গ্রাম পঞ্চায়েতের অধিকাংশ জায়গায়, সগুনা, চারঘাট গ্রাম পঞ্চায়েতের অর্ধেক অংশে, সাড়াফুল নিরমান, গোবিন্দপুর পঞ্চায়েত সমিতির কিছু অংশে বিদ্যুৎ সংযোগ ফেরত আসলেও, বালতি নিত্যানন্দকাটি, বাঁকড়া গোকুলপুর, কৈজুরি গ্রাম পঞ্চায়েতের গোটা এলাকা অন্ধকারে। বিথারি হাকিমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শুধু বাজারে বিদ্যুৎ এসেছে। ঝড়ে ১০০ এর উপর বিদ্যুতের পোল ক্ষতিগ্রস্থ হলেও, সব বিদ্যুতের পোল এখনো লাগানো হয়নি। বিদ্যুতের লাইনে কাজ হচ্ছে। কবে কোন এলাকায় কাজ হবে তার সূচি প্রস্তুত হয়েছে।” হাই টেনশন লাইনগুলি ফাঁকা মাঠের মধ্যে দিয়ে গেছে। বৃষ্টিতে বিদ্যুতের তারের ক্ষতি হয়েছে। অতি ভারী বৃষ্টির ফলে মাঠে জল জমে থাকায় বৈঠকে পঞ্চায়েত সমিতির তরফে রাস্তার উপর দিয়েই ওভারহেড কেবল দিয়ে বিদ্যুতের হাইটেনশন লাইনের সংযোগ স্থাপনের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে হাবিবুর জানান। তিনি আরো বলেন, রবিবার বাকড়া গোকুলপুরে বিদ্যুৎ পুন:সংযোগের কাজ শুরু হবে, বিথারি হাকিমপুরেও বাকি অংশের কাজ শুরু করার চেষ্টা করা হবে।

স্বরূপনগর ব্লকের ১০ টি গ্রাম পঞ্চায়েতে প্রায় ৮ লক্ষ মানুষ বসবাস করেন। এর মধ্যে ১৭ হাজার মানুষকে বাড়ি তৈরির জন্য ক্ষতিপূরনের অর্থ দেওয়া হচ্ছে বলে হাবিবুর জানান।