আরো এক নক্ষত্র পতন, প্রয়াত নবনীতা দেব সেন

0
Another star fall, died nabanita Deb Sen

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : আরো এক নক্ষত্র পতন। প্রয়াত বিশিষ্ট কবি- সাহিত্যিক নবনীতা দেবসেন ৷ বৃহস্পতিবার সন্ধে সাড়ে ৭টা নাগাদ কলকাতায় হিন্দুস্থান পার্কের নিজের বাড়িতেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেনের প্রথম পক্ষের স্ত্রী তিনি ৷ বয়স হয়েছিল ৮১ বছর ৷

ক্যানসার রোগে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন তিনি ৷ অঙ্গপ্রতঙ্গ বিকল হয়ে যায় তাঁর ৷  ২০০০ সালে পদ্মশ্রী পান প্রয়াত সাহিত্যিক ৷ ১৯৯৯-তে সাহিত্য অকাদেমি পান ৷ ১৯৫৯ সালে প্রথম বই ‘প্রথম প্রত্যয়’ ৷  ১৯৭৬ সালে তাঁর লেখা প্রথম উপন্যাস  ‘আমি অনুপম’ ৷ ১৯৭৫-২০০২ পর্যন্ত যাদবপুরে তুলনামূলক সাহিত্যে  অধ্যাপনা করতেন নবনীতা দেবসেন৷ তাঁর প্রয়াণে শোকাহত সাহিত্যিক ও শিক্ষা মহল ৷ শোকপ্রকাশ করেছেন অমর্ত্য সেনও। প্রথম স্ত্রীর মৃত্যু সংবাদ পেয়ে তার মন্তব্য ” ওর সাথে দেখা করতে পারলে ভালো হত। ওর অভাব অনুভূত হবে।” মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোকবার্তায় বলেছেন,
“বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ নবনীতা দেবসেনের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ ৮১ বছর বয়সে কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। অসংখ্য গল্প, কবিতা, রম্যরচনা ও উপন্যাসের স্রষ্টা নবনীতা দেবসেন পদ্মশ্রী, সাহিত্য অ্যাকাডেমি, কমলকুমারী জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত হন। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগে অধ্যাপনা করতেন।
তাঁর প্রয়াণে সাহিত্য জগতে এক অপূরণীয় ক্ষতি হল।
আমি নবনীতা দেবসেনের পরিবার-পরিজন ও অনুরাগীদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।” বিজেপির পক্ষ থেকেও শোকপ্রকাশ করা হয়েছে। দলের তরফ থেকে শোকপ্রকাশ করে বলা হয়েছে, “আমরা হারালাম বাংলার অন্যতম সাহিত্যিক নবনীতা দেব সেন কে । মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।
দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সারে ভুগছিলেন । তার মধ্যেও নিয়মিত লেখালেখি করে গিয়েছেন।পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে বাংলা সাহিত্যেকে সমৃদ্ধ করেছেন নবনীতা। পেয়েছেন সাহিত্য অকাদেমি ও পদ্মশ্রী-সহ নানা পুরস্কার। বাংলা সাহিত্যের অন্যতম সাহিত্যিক কবি প্রাবন্ধিক নবনীতা দেবসেনের মৃত্যু এক শূন্যস্থান সৃষ্টি করবে । তার আত্মার সদগতি কামনা করি।”