বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ দেশের জন্য সবচেয়ে সেরাটাই দেবে:শচীন তেন্ডুলকর

0
As president of the board, Sourav will give the best for the country: Sachin Tendulkar

নিউজ ডেস্ক,টাইমস বাংলা: সচিন তেন্ডুলকর আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নতুন ইনিংস শুরু হওয়ার লগ্নে।সচিন তেন্ডুলকরের দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি জানান,আমি দারুণ খুশি হয়েছি সৌরভের প্রেসিডেন্ট হওয়ার খবরটা পেয়ে।আমি ওকে অনেক শুভেচ্ছা জানাতে চাই।সৌরভ একটা নতুন ইনিংস শুরু করতে চলেছে।অনেক শুভকামনা রইল সৌরভের জন্য।

সেই অনূর্ধ্ব-১৫ ক্রিকেটের দিন থেকে সম্পর্ক সচিন-সৌরভের।তাঁদের প্রথম দেখা হয়েছিল বাসু পরাঞ্জপের শিবিরে। সৌরভ কে মাঝে মাঝে বলতে শোনা যায়,সচিনের সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতেই দুটো জিনিস তার নজরে এসেছিল।শচীনের অনূর্ধ্ব-১৫এর দিন থেকেই কী অসম্ভব ব্যাটিং খিদে ছিল।এছাড়াও তাঁকে নেট থেকে বার করে আনা যেত না জোর করেও।দ্বিতীয়ত সৌরভকে খুব অবাক করেছিল সচিন কিশোর বয়স থেকেই যে কত ভারী ব্যাট করতেন।

দুই বন্ধুর স্মৃতিমেদুর হয়ে ওঠার আর একটি দিন ২৩ অক্টোবর ২০১৯-এর মুম্বই এসেই আর এক প্রস্ত বৈঠক।আরও এক প্রাক্তন তারকা মহম্মদ আজহারউদ্দিনের সঙ্গে লবিতেই দেখা হয়ে গেল।সৌরভ গাঙ্গুলীর টেস্ট অভিষেকের ক্যাপ্টেন তিনি।তবে এখন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী।

আজহার তাঁর সতীর্থ।নতুন সচিব অমিত শাহ-র পুত্র জয় শাহ,নতুন কোষাধ্যক্ষ এবং অন্যান্য পদাধিকারীদের সঙ্গে বুধবারের সভা নিয়ে জরুরি আলোচনা সেরে নেওয়া।রাতে আবার মুম্বই ক্রিকেট সংস্থার দেওয়া পার্টি ছিল।ক্রিকেটজীবনে এ ধরনের পার্টি সাধারণত এড়িয়েই যেতেন সৌরভ।তিনি যে আর ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক নন।সকলেই চান,তিনি একবার আসুন।তাই যেতেই হল।তবে মেরিন ড্রাইভে যে হোটেলে এসে তিনি উঠতেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএল খেলার সময়,সেখানে তাঁর ‘স্যুইট রুমে’ ফিরে এলেন দ্রুতই।জানলা দিয়ে তাকালে সমুদ্র।যা তাঁর অনেক ক্রিকেট-কাহিনির সাক্ষী।এই মুম্বইয়েই তিনি ভারত অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন।সেখানেই মহানাটকীয় মোচড়ে এক সপ্তাহ আগে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হয়েছেন।বুধবার সরকারি ভাবে বসে পড়ছেন বোর্ডের মসনদে। দিন।সচিন বলে ফেলছেন,‘‘সেই অনূর্ধ্ব-১৫ ক্রিকেটের দিন থেকে সৌরভকে আমি দেখছি এবং সব চেয়ে বেশি করে আমাকে মুগ্ধ করেছে সৌরভের ক্রিকেট নিয়ে আবেগ এবং দেশের হয়ে ভাল করার ইচ্ছাশক্তি।সৌরভ এর আগে একজন ক্রিকেটার এবং অধিনায়ক হিসেবে দেশের সেবা করেছে।বোর্ড প্রেসিডেন্টের নতুন ভূমিকাতেও ও সম্মান এবং সাফল্যের সঙ্গে দেশের সেবা করে যাবে আমি নিশ্চিত।

ঐতিহাসিক সেই সন্ধিক্ষণের কথা ভাবতে গিয়ে আবেগপ্রবণ তাঁর বিখ্যাত ওপেনিং পার্টনারও।সচিন বললেন,‘‘সৌরভকে চিনি।ক্রিকেটার এবং অধিনায়ক হিসেবে সবসময় ভারতীয় ক্রিকেটের মঙ্গল ওর কাছে অগ্রাধিকার পেয়েছে।আমি জানি, বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবেও ওর লক্ষ্য থাকবে ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য সেরাটা উজাড় করে দেওয়া।’’দ্রুত যোগ করলেন, ‘‘আমার মনে হয় সেটাই সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।লক্ষ্যটা ঠিক থাকছে কি না সেটাই আসল।আর আমি নিশ্চিত, ভারতীয় ক্রিকেটের সেবা সব চেয়ে ভাল কী ভাবে করা যায়,সেটাই বোর্ড প্রেসিডেন্ট হয়েও সবসময় মাথায় থাকবে সৌরভের।’’দুজনে অসাধারণ সব ইনিংস খেলে,চিরস্মরণীয় সব পার্টনারশিপ গড়ে ভারতকে অবিশ্বাস্য সব ম্যাচ জিতিয়েছেন।একজন এগারো বছর আগে ক্রিকেটার হিসেবে যাত্রা শেষ করে ফিরে এলেন বোর্ডের সর্বময় কর্তা হিসেবে। অন্যজন বাড়িয়ে দিচ্ছেন শুভেচ্ছার হাত।‘‘ক্রিকেটার সৌরভ,অধিনায়ক সৌরভ ভারতীয় ক্রিকেটের সেবা করেছে।এবার প্রেসিডেন্ট সৌরভের পালা।একটা জিনিস বলতে পারি লক্ষটা পাল্টাবে না”। প্রাক্তন সতীর্থ ডাকলে তিনিও কি যোগ দিতে পারেন বোর্ডে ভারতীয় ক্রিকেটের কাজে?জিজ্ঞাসা করায় সচিন বললেন, ‘‘আমি দেওয়ার জন্য তৈরি থেকেছি আমার কাছে পরামর্শ যখনই চেয়েছে।এখনও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকব।তার জন্য কোন পদে থাকতে হবে আমাকে তার কোনও মানে নেই।সাহায্য বা পরামর্শের জন্য সবসময় আছি।’’