হোটেল নিয়ে বৌবাজারের বাসিন্দাদের আর কোন অভিযোগ নেই : কেএমআরসিএল

0
Boubazar residents no longer complain about hotel: KMRCL

পল্লব ঘোষ টাইমস বাংলা কলকাতা : শহরের বিভিন্ন হোটেলে থাকা ক্ষতিগ্রস্থ বৌবাজারের বাসিন্দাদের পরিষেবাগত অভাব অভিযোগের পরিমান আগের তুলনায় অনেক কমেছে বলে জানিয়েছে মেট্রো কতৃপক্ষ। রবিবার সন্ধ্যায় কেএমআর সিএল এর প্রশাসন বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার এ কে নন্দী টাইমস বাংলাকে জানান, বাসিন্দাদের অভাব অভিযোগ জানানোর সুবিধার্থে প্রতিটি হোটেলে একটি করে রেজিস্টার রাখা হয়েছে। সংস্থার তরফে দুটি দল প্রতিদিন শহরের মোট ২১ টি হোটেলে গিয়ে ঐ রেজিস্টার খতিয়ে দেখার পাশাপাশি, বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলছেন। কোন রুগী বা বয়স্ক ব্যক্তির চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়ার ব্যাপারেও মেট্রো কতৃপক্ষ সহযোগিতা করছে। খাবারের মান নিয়েও এখন তাদের অভিযোগ নেই বলে শ্রী নন্দী জানিয়েছেন। কিছু বাসিন্দা অন্যত্র থাকার জন্য বাসস্থান দেখেছেন বলেও তিনি জানান। সেখানকার ভাড়াও মেট্রো কতৃপক্ষ মিটিয়ে দেবে বলে তিনি জানান।

এদিকে, বৌবাজারে কতগুলি বাড়ির বাসিন্দাদের ফিরিয়ে আনা যাবে তা বিশেষজ্ঞ কমিটির রিপোর্ট পেয়ে কলকাতা পুরসভার সঙ্গে আলোচনার পরই ঠিক হবে বলে মেট্রো কতৃপক্ষ জানিয়েছে। বাজারে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে খুব শীঘ্রই বিশেষজ্ঞ কমিটি তাদের রিপোর্ট দেবে। সেই রিপোর্ট দেখেই পুরসভার সঙ্গে আলোচনা করে কতগুলি বাড়ি ভাঙা হবে ও কতগুলি বাড়িতে বাসিন্দাদের ফিরিয়ে আনা যাবে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে প্রাথমিকভাবে ২০ টি বাড়ি ভাঙার জন্য পুরসভার কাছে সেই বাড়িগুলির স্কেচ ও ভাড়াটিয়াদের তথ্য চাওয়া হয়েছে। ক্ষতিপূরণ প্রাপকের মধ্যে মালিকানা নিয়ে গড়মিল দেখা যাওয়ায় প্রকৃত ক্ষতিপূরণ প্রাপকের সংখ্যা খতিয়ে দেখতে পুলিশ ও স্থানীয় কাউন্সিলার কাজ করছেন বলে এ কে নন্দী জানান।