করোনা রুখতে কেন্দ্র- রাজ্য একসাথে কাজ করবে, আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর

0
Center will work together to prevent Corona: CM advises to be careful not to panic

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : নভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে রাজ্যবাসীকে অযথা আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এই রোগের সংক্রমণ থেকে উদ্ভূত পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী শুক্রবার নবান্নে এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন । রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের পাশাপাশি, রেল , কোল ইন্ডিয়া, অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক, জাহাজ মন্ত্রকের মত বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন ওই বৈঠকে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী জেলাগুলির জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গেও কথা বলেন। বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এখনও এরাজ্যে করোনা সংক্রমণের কোন ঘটনা ঘটেনি। আগামী দিনেও যাতে রাজ্যবাসী সুরক্ষিত থাকেন সেজন্য প্রশাসনের সব বিভাগকে করোনা প্রতিরোধে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও কেন্দ্রীয় সরকারের জারি করা নির্দেশিকা অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে বলা হয়েছে। কলকাতার পাশাপাশি জেলা গুলিতেও করোনা মোকাবিলার পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে। সীমান্ত ঘেঁষা এলাকাগুলিতে বিশেষ সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে।বাংলাদেশ , ভুটান, নেপাল থেকে সীমান্ত পার করে আসা মানুষের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মানুষের মধ্যে সচেতনতা প্রচারের ওপরে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে বলেও মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিও রাজ্য সরকারের সঙ্গে যৌথ ভাবে এই কর্মসূচিতে সামিল হবে।

অন্যদিকে করোনা প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের মত বিভিন্ন সামগ্রীর কালোবাজারি রুখতেও মুখ্যমন্ত্রী কড়া বার্তা দিয়েছেন। কালোবাজারি রুখতে তিনি পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। সাংবাদিকদের তরফে জানানো হয়, এই মাস্ক খুবই কম পাওয়া যাচ্ছে দোকানে। সেইসঙ্গে অনলাইনে এই এন ৯৫ মাস্ক কিনতে গেলে প্রচুর দাম নিচ্ছে। ফলে সবার পক্ষে কেনা সম্ভব হচ্ছে না। তখনই হুঁশিয়ারির সুরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “করোনার আক্রমণ রুখতে এই মাস্ক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই এই মাস্ক নিয়ে ব্যবসা করা যাবে না। আমিও শুনেছি মাস্কের জোগান কম। কোনও জায়গায় দাম বেশি নিচ্ছে। কিন্তু আমি বলতে চাই, যদি কেউ এই মাস্ক নিয়ে কালোবাজারি করে তাহলে সরকার সব বাজেয়াপ্ত করে নেবে। তারপর সরকারই তা বিলি করবে।”

তারপরেই অবশ্য এই মাস্কের বিকল্প ব্যবহারের কথাও বলেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বলেন, “শুধুমাত্র মাস্ক কেন, আগেকার দিনে মা-কাকিমারা শাড়ির আঁচল দিয়ে নাক-মুখ ঢাকতেন। সেভাবেও প্রতিরক্ষা করা যায়। পুরনো জিনিস ভুলে গেলে চলবে নে। ওল্ড ইজ গোল্ড।”

ওষুধ ও সরঞ্জামের যোগান স্বাভাবিক রাখতে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছেও আবেদন জানান। বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রকে চিঠিও লিখবেন মুখ্যমন্ত্রী বলে জানিয়েছেন।
মুখ্যমন্ত্রী আরো জানিয়েছেন করোনা প্রতিরোধ নিয়ে ২৪ ঘন্টার একটি হেল্পলাইন চালু করা হয়েছে। এর নম্বর হল1800313444222। এছাড়া রাজ্য সরকার ও একটি হেল্পলাইন চালু করেছে। তার নম্বর 033 23412600। রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর ও প্রত্যেকদিন করোনা নিয়ে বুলেটিন প্রকাশ করবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন।