বিনা মাশুলে কৃষিপণ্য পৌঁছে দেবে ‘কৃষক বন্ধু ডাক সেবা’

0

প্রবাল আদিত্য, টাইমস্ বাংলা, ঢাকা: করোনার প্রাদুর্ভাবে বাংলাদেশে যখন সাধারণ ছুটি চলছে, তখন থেকেই ডাক বিভাগ করোনার সরঞ্জামাদি পৌছে দেবার নজির সৃষ্টি করেছে। এখানেই সীমাবদ্ধ থাকেনি সংস্থাটি। সকল অফিস-আদালত যখন বন্ধ, তখন জেগে ছিল ডাক বিভাগ। ডাক ব্যাংককের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা পৌছে দিয়েছে গ্রাহকের দোরগড়ায়। সবশেষে এই নিদানকালে কাঁধে তুলে নিয়েছে বিনা মাশুলে রাজধানীতে কৃষিপণ্য পৌঁছে দেবার দায়িত্ব। শনিবার ‘কৃষক বন্ধু ডাক সেবা’ উদ্বোধন করলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, লকডাউনে প্রান্তিক কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য রাজধানীর পাইকারি বাজারে বিনা মাশুলে পৌঁছে দেবে কৃষক বন্ধু ডাক সেবা। ডাক অধিদপ্তরের এই সেবা সার্ভিসটি ঢাকার পার্শ্ববর্তী মানিকগঞ্জ জেলার কৃষকদের উৎপাদিত শাকসবজি পরিবহনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো।

মোস্তাফা জব্বার ঢাকার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে শনিবার মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর উপজেলার ঝিটকা বাজার থেকে কৃষক বন্ধু ডাক সেবার উদ্বোধন করেন। এসময় মন্ত্রী বলেন, এই সেবার আওতায় ডিজিটাল প্লাটফর্মের মাধ্যমে একজন কৃষক ঘরে বসেই তার বিক্রয়লব্ধ পণ্যের টাকা পেয়ে যাবেন। এর ফলে কোন মধ্যস্বত্বভোগী ছাড়াই কৃষক উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য পাবেন।
দেশব্যাপী ডাক পরিবহনে ব্যবহৃত রাজধানী ফেরৎ ডাক অধিদপ্তরের গাড়ীগুলো কৃষকের উৎপাদিত পণ্য পরিবহনে ব্যবহার হবে। এতে সরকারের অতিরিক্ত কোন খরচেরও প্রয়োজন হবে না। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে সেবাটি চালুর কথা জানান মন্ত্রী। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সংকট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত দিকনির্দেশনা তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, প্রধানমন্ত্রী কৃষি উৎপাদনকে সচল রাখতে এবং কৃষি উৎপাদনের মধ্য দিয়ে দেশে যাতে খাদ্য সংকট না হয়, সেজন্য কৃষিখাতের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন।

সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে ঝিটকা বাজার প্রান্তে মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডাক বিভাগের পরিচালক এসএম হারুনুর রশিদ, হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিন , উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: জহিরুল হক, বাংলাদেশ কৃষক লীগ প্রতিনিধি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, এবং ব্যবসায়ী প্রতিনিধিসহ কৃষিপণ্য উৎপাদনকারি কৃষক প্রতিনিধিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব নূর-উর-রহমান এবং ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এসএস ভদ্র এই সময় ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে সংযুক্ত ছিলেন।