নীতিগতভাবে খাশোগী হত্যার দায় স্বীকার করলেন সৌদী প্রিন্স

0

নিউজডেস্ক, টাইমস্ বাংলাঃ প্রায় এক বছর পর সৌদি প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমান জামাল খাশোগি’র নির্মম হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করলেন। সম্প্রতি মার্কিন টিভি চ্যানেল পিবিএসকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বিন সালমান বলেছেন, যেহেতু ঘটনাটি তার সময়কালে সংঘটিত হয়েছে তাই ওই হত্যাকাণ্ডের সম্পূর্ণ দায়দায়িত্ব তার।

তবে একইসঙ্গে বিন সালমান জোর দিয়ে বলেছেন যে তিনি ওই দুঘর্টনা সম্পর্কে একবারেই জানতেন না। সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বি সাংবাদিক,ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট জামাল খাশোগি ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর প্রশাসনিক কাজে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন। কিন্তু ওই ভবন থেকে আর প্রাণ নিয়ে বেরিয়ে আসতে পারেন নি। সৌদি নিরাপত্তা বাহিনী একটি বিশেষ বিমানে ইস্তাম্বুলে গিয়ে জামাল খাশোগিকে হত্যা করার পর তার মৃতদেহ টুকরো টুকরো করে ফেলে।

এই হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে সৌদি সরকার এ পর্যন্ত চারটি কৌশল অবলম্বন করেছে। প্রথম কৌশলটি ছিল এই ঘটনার সাথে যে-কোনো প্রকার সম্পৃক্তি “অস্বীকার” করা।

দ্বিতীয় কৌশলটি ছিল, হত্যাকাণ্ডটি সৌদি নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ঘটালেও এই অপরাধের সঙ্গে বিন সালমানসহ সৌদি কর্মকর্তাদের কোনো হাত ছিল না। আলে-সৌদের ওপর ব্যাপক আন্তর্জাতিক চাপের পরিপ্রেক্ষিতিই কৌশলটি গৃহীত হয়েছিল।

তৃতীয় কৌশলটি ছিল একটা ক্যাঙ্গারু আদালত গঠন করে খুনিদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দেওয়া।

চতুর্থ কৌশলটি স্বয়ং বিন সালমান গ্রহণ করেছেন। তিনি এই প্রথমবারের মতো খাশোগি হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন। এখন প্রশ্ন হল গত এক বছর ধরে যেই বিন সালমান খাশোগি হত্যাকাণ্ডের দায়িত্ব কোনোভাবেই গ্রহণ করেন নি তিনি এখন কেন তা মেনে নিলেন?