স্বাস্থ্যদপ্তরের নির্দেশে করোনা মোকাবিলায় কাজ শুরু করছে কলকাতা পুরসভা

0
Kolkata municipality is working to combat Corona at the behest of the health department

পল্লব ঘোষ টাইমস বাংলা কলকাতা : শহরে করোনা সংক্রমণ এড়াতে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশে কলকাতা পুরসভা সতর্কতামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ করছে বলে ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ জানিয়েছেন। পুরভবনে শনিবার স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে করোনা নিয়ে বৈঠকের পর ডেপুটি মেয়র সাংবাদিকদের একথা জানান। তিনি বলেন, রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের করোনা সংক্রান্ত নির্দেশিকা, প্রতিটি ওয়ার্ডের পুর স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও বোরো স্বাস্থ্য দপ্তরে হোর্ডিং  টাঙানো হবে। শহরবাসীকে করোনা সম্পর্কে কী করণীয় তা জানাতে সরকারের তরফে পুরসভাকে যে প্রচার পুস্তিকা দেওয়া হয়েছে তা ওয়ার্ড স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে মানুষের মধ্যে বিলি করা হবে। বিদেশ থেকে আগত যে সকল ব্যক্তিদের স্বাস্থ্যদপ্তরের তরফে হোম আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সেসব ব্যক্তিদের বাড়ির ঠিকানা পুরসভাকে পাঠানো হয়েছে। ঐ ব্যক্তিরা বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন কিনা এবং তাঁদের শারীরিক অবস্থা কেমন আছে তা নিয়মিত পর্যবেক্ষন চালিয়ে তার রিপোর্ট প্রতিটি ওয়ার্ডের স্বাস্থ্য আধিকারিকদের পুরসভাকে দিতে বলা হয়েছে। পুরসভা ঐ রিপোর্ট রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরকে পাঠিয়ে দেবে। এদিকে, করোনার মত উপসর্গ কোনো রুগীর শরীরে দেখা দিলে, তার তথ্য পুরসভায় স্বাস্থ্যবিভাগকে পাঠাতে বলা হয়েছে, ঐ তথ্য পুরসভা স্বাস্থ্যভবনে পাঠিয়ে দেবে। আগামী বুধবার বোরো স্বাস্থ্য কার্যনির্বাহী আধিকারিকরা, ওয়ার্ড স্বাস্থ্য আধিকারিক ও প্রচার কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। ঐ বৈঠকে করোনা সম্পর্কে তাঁদের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, কলকাতা পুর এলাকায় এখনও পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের কোন খবর নেই। পাশাপাশি গোটা রাজ্যে এই সংক্রমনে আক্রান্তের কোন খবর নেই বলেও তিনি জানান। করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোন কারণ নেই বলেও তিনি আশ্বস্ত করেন। এ ধরনের কোন উপসর্গ দেখা দিলে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা রয়েছে। পাশাপাশি নমুনা পরীক্ষার জন্য NICED-এ যাবতীয় ব্যবস্থা রয়েছে বলেও মেয়র জানান।

এদিন পুরসভার মাসিক অধিবেশনে করোনা নিয়ে মুলতুবি প্রস্তাব আনেন তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলার শান্তনু সেন। তিনি করোনা সম্পর্কে শহরবাসীকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবার দাবি জানান। কংগ্রেস কাউন্সিলার প্রকাশ উপাধ্যায় ও সিপিআইএম কাউন্সিলার মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্তীও সাধারণ মানুষকে এই সম্পর্কে অভয় দেওয়ার পাশাপাশি, পরামর্শ দেওয়ার দাবি জানান।