জমি নেবে কি না তার সিদ্ধান্ত 26 শে নভেম্বর:সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড

0

নিউজডেস্ক, টাইমস্ বাংলা:গত শনিবার বাবরি মসজিদ জমি সংক্রান্ত্র মামলায় যে রায় দিয়েছে তাতে বলাহয়েছে, বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি অর্থাৎ বাবরি মসজিদ ও তার চত্তর পাবে রামলীলা ময়দান, পরিবর্তে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড়কে ৫ একর জমি দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু সেই জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড গ্রহন করবে কি না তা স্থির হবে ২৬ শে নভেম্বর।
বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ টানা চল্লিশ দিন শুনানির পর একটি রায় দেন। যেহেতু মামলাটি ছিল জমির দাবি সংক্রান্ত্র সেহেতু এখানে ঐ মসজিদ ধংশকারীদের বিষয়ে কোন কিছুই উল্লেখ নেই। এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়ে যদিও মসজিদের মূলভুমিতে এক তৃতীয়াংশে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডে অধিকারের বিষয় থাকলেও সুপ্রিমকোর্টের রায়ে সম্পূর্ণভাবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে বাবরি মসজিদের জমি থেকে সম্পুর্ণ ভাবে উৎখাত করা হয়েছে।এবং জায়গায় রামমন্দির নির্মানের ছাড়পত্র পাকাপোক্ত ভাবে দেওয়া হয়েছে।
সুপ্রিমকোর্টের এই রায়ে বিভিন্ন মহলে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হলেও, ন্যায়ের থেকে শান্তিকে গুরুত্ব দিয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড নিরব থেকেছে। বোর্ডের এখন মুখ্য আলোচ্য বিষয় সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশিত জমি গ্রহন করবে কি না। বোর্ডের সভাপতি জাফর ফারুকী জানিয়েছেন,২৬শে নভেম্বর এক বৈঠকে তা নির্ধারিত হবে। তবে তিনি তাঁর ব্যক্তিগত অভিমতে বলেন,জমি গ্রহনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন মতামত আসছে।তিনি মনে করেন,ইতিবাচক মানসিকতার সাহায্যে সমস্থ নেতিবাচক বিষয় দুর করা সম্ভব।তিনি বলেছেন, এমনও মতামত আসছে জমি গ্রহন করে সেখানে একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও একটি মসজিদ নির্মান করা হোক।
তবে কেউ কেউ মনে করছেন, মামলাটি শুনানির শেষ মুহুর্তে বোর্ড বাবরি মসজিদের জমি থেকে নিজেদের দাবী প্রত্যাহারের ঘোষনা দিয়ে ছিল।যদিও পরে বোর্ড তার এই অবস্থানের পরিবর্তন আনে।সেই জন্য এই রায় তাদের নিকট নতুন কিছু নয়।