মালদা ও চাঁচলে জমজমাট হয়েউঠেছে ঈদের বাজার,ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়

0
Melda and Chengte have grown to the Eid market, the crowd of buyers crowded

নিজস্ব প্রতিবেদক, টাইমস্ বাংলা,মালদাঃ মাত্র আর হাতে গোনা কয় ঘন্টা তার পরে মুসলিম সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতরের।আর এই ঈদের আনন্দে মেতে উঠেছে বিক্রেতা থেকে ক্রেতা সকলেই চলছে শেষ মুহূর্তের কেনাকাটা। ফলে মালদা শহরে সাথে চাঁচল মহোকুমার চাঁচলের বাজার গুলিতে চলছে ঈদের বাজারে।
বড় বড় মার্কেট, থেকে শুরু করে ছোট মার্কেট, সব জায়গায় কেনাকাটায় ভির চোখে পড়ার মতো। তবে এবছরে নজরকাড়া ক্রেতাদের ভিড় চাঁচলের সর্বপ্রথম নতুন শপিং মহল ষ্টাইল বাজারে।
সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে রমরমিয়ে বেচাকেনা ভির । অন্যদিকে তাকালে ফলে দোকান গুলিতে চোখে পড়ার মতো ভির । অতিরিক্ত ক্রেতা সামলাতে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। বিক্রেতারা জানিয়েছেন রমজানের শেষের দিকে চাকরিজীবীরা বেতন-বোনাস পাওয়ায় ক্রেতাদের ভিড় আরও বেড়ে গেছে।

[আরও খবর পড়ুন :   ভারতের সামরিকবিমান নিখোঁজ ]

দশম রমজান থেকে থানকাপড় ও আনস্টিচ থ্রিপিছের দোকানে ভিড় জমলেও রেডিমেড কাপড়ের দোকানগুলোতে পুরোদমে কেনাকাটা শুরু হয়েছে এ সপ্তাহ থেকেই।
মালদা শহর সহ চাঁচলের বেশ কয়েকটি মাকের্ট ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতার ভিড়। ঈদের কেনাকাটায় ছুটে আসছে গ্রামাঞ্চলের গ্রাহকরাও। তাই ক্ষুদ্র যানবাহন গুলিরও আয় বৃদ্ধি বেড়েছে। এদিকে চাঁচল দৈনিক বাজার লাগোয়া পথে বসেছেন লাচ্ছা সেমুই বিক্রেতারাও। তাই সর্বশেষে আমন্ত্রিত অতিথিদের মুখ মিষ্টান্নের জন্যে হরদম রকমারি সেমুই,খুরমা বিক্রিত হচ্ছে বন্ধ নেই লেডিস ও জেন্টস পার্লারও। লাইন রেখে চলছে ভির অপেক্ষা করছেন নিজের সৌন্দর্যের জন্যে।
এদিকে প্রতিবছরের মতো ছুটে এসেছে মিনাবাজার। তবে এবছর চাঁচল কলমবাগানের পরিবর্তে বিধানসরণী( কাঠমিলের বিপরীতে ) বসেছে মিনাবাজার মেলা।