পাকিস্তান জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে ইমরান খান কে চিঠি নরেন্দ্র মোদীর, রাজনৈতিক মহলে জোর তরজা

0

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : বসপা নেত্রী মায়াবতী টুইট করে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্য লেখেন, “একদিকে ভোট পাওয়ার জন্য পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মন্তব্য করছেন, অন্যদিকে আবার লুকিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। দেশের ১৩০ কোটি মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করাটা কি ঠিক হচ্ছে? জনগণের কাছে আবেদন করছি, সাবধান।” মায়াবতীর এই টুইটের পর একই সুরে কথা বলেছেন উত্তরপ্রদেশে তাঁর জোটসঙ্গী সমাজবাদী পার্টি নেতা অখিলেশ যাদব। তিনি টুইট করে বলেন, “১৩০ কোটি ভারতবাসীর কাছে অনুমতি নেওয়ার পরেই এই চিঠি লেখা উচিত ছিল প্রধানমন্ত্রীর।” পিছিয়ে নেই কংগ্রেসও। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা মোদীকে ‘শ্রীমান ৫৬(ইঞ্চি)’ বলে সম্বোধন করে টুইট করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, “পাঠানকোটে আইএসআইকে আমন্ত্রণ করেছিলেন মোদী। আর এখন ইমরান খানকে লুকিয়ে চিঠি লিখেছেন। সেখানে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে একটা কথাও লেখা হয়নি। কেবল সাধারণ মানুষ ও মিডিয়ার সামনে ছাতি ঠুকে বড় বড় ভাষণ দিয়ে মিথ্যে কথা বলা হয়।”
কিন্তু কেন এমন প্রতিবাদ ? আসলে শুক্রবার পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজের টুইটারে লেখেন, পাকিস্তান জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে তাঁকে চিঠি পাঠিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই চিঠিতে তিনি পাকিস্তানের মানুষকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। ইমরান আরও জানান, চিঠিতে মোদী লিখেছেন, সন্ত্রাস দূর করার জন্য ও শান্তি বজায় রাখার জন্য দু’দেশের মানুষকে একসঙ্গে চলতে হবে। আর এই খবর বেরনোর পরেই বিরোধীরা মোদীকে নিশানা করছেন। মায়াবতী থেকে অখিলেশ হয়ে কংগ্রেস নেতারা, সবার আক্রমণের নিশানায় মোদীর পাঠানো চিঠি।কারণ সবাই এই চিঠির তীব্র নিন্দুক। স্বাভাবিক ভাবেই পুলওয়ামা কাণ্ডের পর মোদীর এই চিঠি পাঠানো নিয়েই জোর তরজা শুরু হয়েছে জাতীয় রাজনীতিতে।