লোকসভার আগে এনডিএ জোট ছাড়তে চলেছে আরো এক শরিক দল রাজভর সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি

0

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক: বিজেপির জোট সঙ্গী রা একে একে বিজেপি ছাড়তে চাইছে ঊনিশের ফাইনালের আগেই। শরিকি সমস্যায় বিড়ম্বনা ক্রমশ প্রকট হচ্ছে এনডিএ’তে৷ কারণ অবশ্যই ভিন্ন মত পোষণ বা মতবিরোধ।এর জেরেই লোকসভা ভোটের মুখে বিজেপির হাতছাড়া আরও এক শরিক দল। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ মন্ত্রিসভার সদস্য ওম প্রকাশ রাজভর বিজেপির সঙ্গে বিচ্ছেদের দিন ঘোষণা করে দিলেন৷ জানিয়ে দিয়েছেন, ২৪ ফেব্রুয়ারি এনডিএ থেকে বেরিয়ে আসবে তাঁর দল রাজভর সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি৷যদিও এই বিচ্ছেদ শুধু সময়ের অপেক্ষাই ছিল৷ এর আগে বিহারে জোট থেকে বেরিয়ে আসেন উপেন্দ্র কুশওয়াহা৷ নাগরিকত্ব বিল নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে আসে অসম গণ পরিষদ৷

উত্তরপ্রদেশের অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ মন্ত্রী রাজভর যোগী সরকারকে ১০০ দিন সময় দিয়েছিলেন৷ জানিয়েছিলেন, এই ১০০ দিনের মধ্যে অনগ্রসরদের জন্য ২৭ শতাংশ সংরক্ষণের ঘোষণা করতে হবে৷ কিন্তু সেই ঘোষণা এখনও বিজেপির তরফে করা হয়নি৷ ভবিষ্যতে করার সম্ভাবনাও দেখছে না রাজনৈতিক মহল৷ সম্ভবত সেই দেওয়াল লিখন পড়ে নিয়েছেন রাজভর৷ তাই এদিন এনডিএ শিবির থেকে বেরিয়ে যাওয়ার দিনক্ষণ ঘোষণা করে দিলেন তিনি৷আগেই রাজভর জানিয়েছিলেন, তাঁর দল উত্তরপ্রদেশের ৮০টি আসনে একাই লড়বে৷ কার্যত, এদিন বারাণসীতে বসে এই ঘোষণা করেন অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ মন্ত্রী৷
এই বারাণসী হল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী কেন্দ্র৷ রাজভর এদিন বারাণসীতে বসে উত্তরপ্রদেশ সরকারের কড়া সমালোচনা করেন৷ জানান, রাজ্য সরকার অপরাধীদের প্রশয় দিয়ে চলেছে৷ বুলন্দশহরের হিংসা আরএসএসের পূর্বপরিকল্পিত চক্রান্ত৷ বলেন, ‘‘বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, বজরং দলের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে আরএসএস এই কাজ করিয়েছে৷ যেদিন বুলন্দশহর হিংসার আগুনে জ্বলে উঠেছিল সেইদিন মুসলিমদের একটি পরব ছিল৷ রাজ্যের শান্তিতে ব্যাঘাত ঘটাতে ওই দিনটিকে বেছে নেওয়া হয়েছিল৷’’