পূর্ণাঙ্গ নয়, অন্তর্বর্তী বাজেটই পেশ করা হবে সংসদে, জানালো কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক

0

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : ঊনিশের লোকসভা নির্বাচনের আগে শেষ বারের মতো প্রথা ভেঙেই মোদী সরকারের নির্দেশ মেনে পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করবেন পীযূষ গোয়েল, শোনা গিয়েছিল এমনটাই। কিন্তু বুধবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক জানিয়ে দিল, ১ ফেব্রুয়ারি সংসদে পেশ হবে অন্তবর্তী বাজেট। অর্থমন্ত্রকের মুখপাত্র এদিন বলেছেন, সংসদে ২০১৯-২০ সালের অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করা হবে। এ নিয়ে কোনও বিভ্রান্তি থাকা উচিত নয়।মঙ্গলবার প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর এক কর্মশালায় কেন্দ্রীয় সরকারের এক অফিসার বলেছিলেন, ১ ফেব্রুয়ারি যে বাজেট পেশ হবে, তার নাম ‘জেনারেল বাজেট ২০১৯-২০’। আগামী বাজেট নিয়ে সরকার যে প্রেস বিবৃতি দেবে তাতে লেখা থাকবে ‘জেনারেল বাজেট ২০১৯-২০’।রাজনৈতিক মহলের ধারণা ছিল, সম্প্রতি তিন রাজ্যে ভরাডুবির পর সাধারণত কোনও বিদায়ী সরকার যেমন ভোট অন অ্যাকাউণ্ট পেশ করে মোদী সরকার তা করবে না।
জল্পনা ছিল, পীযূষ গোয়েল বাজেট প্রস্তাবে কৃষকদের আয় বৃদ্ধির জন্য একাধিক প্রকল্প ঘোষণা করবেন। ঘোষণা করবেন, চাকরিজীবী মধ্যবিত্তের জন্য করছাড়ও।কিন্তু প্রথামতো অন্তর্বর্তী বাজেটে সরকার এমন কোনও করছাড় ঘোষণা করতে পারে না যার জন্য আয়কর আইন সংশোধনের প্রয়োজন হয়। বাজেটে উল্লিখিত নানা খাতে সরকার ৩০ এপ্রিল থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত যে ব্যয় করবে, তা যাতে সংসদ অনুমোদন করে সেজন্যই ওই অর্থবিল পেশ করা হয়। ধরে নেওয়া হয়, তার মধ্যেই নতুন সরকার তৈরি হয়ে যাবে। তারা পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করবে।
উল্লেখ্য,এর আগে অন্তর্বর্তী বাজেটে পরোক্ষ করের হার বদল করা হয়েছে। বর্তমানে তা জিএসটি কাউন্সিল অধীনস্ত বলে সরকার যদি আগের প্রথা মেনে চলে তাহলে শুল্কের হার ছাড়া আর কিছু বদলাতে পারবে না।তাছাড়া গত ডিসেম্বরে জেটলি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমি প্রথা মেনে চলবে। ভোটের বছরে আমি কিছু কাজ করতে পারি। আবার অনেক কাজ করতে পারি না। সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং-এর মাধ্যমে মুম্বইয়ের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য পেশ করেন জেটলি। তিনি সেখানেও বলেন, আমরা চালু প্রথা ভাঙব না। দেশের বৃহত্তর স্বার্থের কথা মাথায় রেখেই অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করা হবে।‘