স্বামীজী প্রতিষ্ঠিত বেলুড় মঠে দাঁড়িয়ে কুৎসিত সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করলেন প্রধানমন্ত্রী : লিবারেশন

0
Swamiji standing ugly sectarian politics at Belur monastery: Liberation

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে স্বামীজী প্রতিষ্ঠিত বেলুড় মঠে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে “সাম্প্রদায়িক রাজনীতি” করার অভিযোগ এনে তাঁর কড়া সমালোচনা করলো সিপিআইএমএল লিবারেশন। রবিবার সকালে বেলুড় মঠে স্বামীজীর ১৫৭ তম জন্মদিন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সাধারণ মানুষকে ও ছাত্র ছাত্রীদের ভুল বোঝানোর জন্য বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে তীব্র আক্রমণ করেন প্রধানমন্ত্রী। এমনকি এই রাজনৈতিক দলগুলিকে সঠিক পথে চালিত করতে যুবসমাজকে এগিয়ে আসার আহবানও প্রধানমন্ত্রী জানান। এর প্রেক্ষিতে এদিন এক প্রেস বিবৃতিতে দলের রাজ্য সম্পাদক পার্থ ঘোষ জানিয়েছেন, ” দেড় দিনের সফরে রাজ্যে এসেছিলেন ‘সাহসী’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সরকারী ঘোষণামত এটা ছিল প্রধানমন্ত্রীর সরকারি সফর। দলীয় বা রাজনৈতিক সফর ছিল না।অথচ রাজনৈতিক বক্তব্য রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী বেছে নিলেন বেলুড় মঠকে। প্রধানমন্ত্রী বললেন,” তরুণরা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ভুল বুঝেছে। তাদের ভুল বোঝানো হচ্ছে”। নাগরিকত্ব আইন নাকি নাগরিকত্ব দেয়ার জন্য, কেড়ে নেওয়ার জন্য নয়। প্রধানমন্ত্রী যে কথাটি বললেন না যে, নয়া নাগরিকত্ব আইন অত্যন্ত সিলেকটিভ, বিশেষ ধর্মসম্প্রদায়ের মানুষকে বাদ দিয়ে। সংবিধানে এমন কোন ধারণা পর্যন্ত নেই। ভারতের সংবিধানে ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব দেওয়ার কোন ধারা বা উপধারা পর্যন্ত নেই। প্রধানমন্ত্রী তার কোন ব্যাখ্যা দিলেন না। বরং কুৎসিৎ সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করলেন । ”

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক নিয়ে এদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও একহাত নেন পার্থবাবু। তিনি বলেন,” গতকাল মোদী বিরোধী উত্তাল রাজ্য পরিস্থিতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একান্তে দেখা করলেন নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে। কেন করলেন ? কোন জবাব নেই।আজ ঘোষণা থাকা সত্ত্বেও আজ পোর্ট ট্রাস্টের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলেন না, এমনকি প্রতিনিধি পর্যন্ত পাঠালেন না।তা কি গতকালের মোদী বিরোধী বিক্ষোভের জেরে? জবাব চাইছে রাজ্য বাসী।”