ছাত্র-ছাত্রীদের স্বীকৃতিই আমার সেরা শিক্ষকের সম্মান: তবে এ সম্মান আল-আমীন পরিবারের সবার, প্রতিক্রিয়া নুরুল ইসলামের

0
The recognition of the students is the honor of my best teacher: but the honor of the al-Amin family is the response of Nurul Islam.

বিশেষ প্রতিবেদন,টাইমস্ বাংলা : তাঁর ছাত্র – ছাত্রীদের স্বীকৃতিতেই, দেশের সেরা ৩০ জন শিক্ষকের একজন হওয়ার সম্মান তিনি অর্জন করতে পেরেছেন। শনিবার সন্ধ্যায় হায়দ্রাবাদে উদ্ভাবন ও উদ্যোগে উৎসাহ দানকারী সংস্থা iB-HUBS থেকে দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষকের সম্মান পাওয়ার পর রবিবার সন্ধ্যায় টাইমস বাংলাকে ফোনে প্রতিক্রিয়ায় এ কথাই জানালেন আল আমীন মিশনের প্রাণপুরুষ তথা মিশনের সাধারণ সম্পাদক এম নুরুল ইসলাম

দেখুন সেই ঐতিহাসিক মুহূর্তের ভিডিও:

টাইমস বাংলাকে ফোনে তিনি বললেন, ” এই সম্মান শুধু আমার ব্যক্তিগত সম্মান নয়, আল-আমীন মিশনের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা সহ মিশনের সহকর্মীদের সকলের জন্য এই সম্মান, এই স্বীকৃতি। আমি আল- আমীন মিশনের সবার কাছেই এর জন্য কৃতজ্ঞ”। iB-Hub এর এই মহান উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ” এই সম্মান গোটা শিক্ষক সমাজের জন্য এক বিরাট সম্মান। ছাত্ররা যে এখনো শিক্ষকদের মনে রেখেছে , ছাত্র ও শিক্ষকদের মধ্যে যে সুমধুর সম্পর্ক বর্তমান, এই স্বীকৃতি তারই প্রমাণ।” এই সম্মান তাঁর ও আল- আমীন মিশনের কাছে কতটা তাৎপর্য বহন করছে এই প্রশ্ন করা হলে নুরুল ইসলাম সাহেব বলেন, ” এই স্বীকৃতির ফলে আল-আমীন মিশনের ভাবনা ও কাজ যে দেশ ও দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্বের আপামর শিক্ষাপ্রেমী মানুষের কাছে পৌঁছে গেল, এটাই আমার ও আমাদের আনন্দের ও গর্বের বিষয়”।
The Man Behind the Mission, M Nurul Islam (Al-Ameen Mission) Final

শনিবার হায়দ্রাবাদে আল আমীন মিশনের প্রাণপুরুষ,মিশনের প্রতিষ্ঠাতা তথা সাধারণ সম্পাদক এম নুরুল ইসলামের হাতে যখন উঠলো দেশের সেরা শিক্ষকের সম্মান, তখন এই মহান ব্যক্তির সমাজের পিছিয়ে থাকা ছেলেমেয়েদের সামনের সারিতে এনে, মাথা উঁচু করে দাঁড় করানোর নিরলস সংগ্রাম, আরো বড় মঞ্চে স্বীকৃতি পেল। বাংলাকে তো আগেই জয় করেছেন, এবার নিজামের শহর হায়দ্রাবাদে গিয়ে তিনি জয় করলেন গোটা দেশ।

এদিন যখন সম্মানের জন্য তাঁর নাম ঘোষণা করা হয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত মিশনের আধিকারিক ও অন্যান্য দর্শকদের কড়তালি ও উচ্ছ্বাসে ভরে ওঠে অনুষ্ঠানস্থল। নুরুল ইসলামের নাম ঘোষণার পরই পর্দায় ফুটে ওঠে অর্থনৈতিক দিক থেকে পিছিয়ে থাকা পরিবারের ছেলেমেয়েদের শিক্ষার মাধ্যমে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করতে তাঁর অঙ্গীকার, দশম শ্রেণীতে পড়তে পড়তেই মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা, যে মাদ্রাসার বর্তমান প্রধান শিক্ষকও তিনি। দশম শ্রেণীতে থাকতে শিক্ষাকতার স্বপ্ন দেখা নুরুল ইসলাম মাদ্রাসা থেকে অবসর নেবেন এই মাসের ৩১ তারিখে। ১৯৮৬ সালে মাত্র ৭ জন গরীব ঘরের ছাত্র ছাত্রীদের নিয়ে শুরু হওয়া আল-আমীন মিশনের সফর। এরপর মঞ্চে তাঁকে ডেকে নেওয়ার সময় আরেকপ্রস্থ উচ্ছ্বাস ও কুর্নিশ। উত্তরীয়, মেডেল পরিয়ে, স্মারক ও শংসাপত্র দিয়ে আই বি হাবের পক্ষ থেকে সম্মান জানানো হল বাংলার এই মহান সন্তানকে।

Al-Ameen Mission (33 Yrs in Service to the Society )

শুধু শিক্ষাক্ষেত্রে অবদানই নয় একজন শিক্ষার্থীর মনে প্রভাব বিস্তার করে তাকে উৎসাহ ও সাহস যুগিয়ে তার ভেতরে থাকা সম্ভাবনাকে বাইরে বের করে এনে জীবনে সফল করে তোলার কৃতিত্বের উপর ভিত্তি করে দেশের সেরা ৩০ হাজার শিক্ষকের মধ্য থেকে ৩০ জনকে সংস্থার তরফে সম্মান জ্ঞাপনের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল। এই শিক্ষকদের অবদান সারা পৃথিবীর সামনে তুলে ধরতে ও আগামী প্রজন্মের কাছে শিক্ষকদের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতেই সংস্থার এই উদ্যোগ। iB-Hubs এর দাবি এই ৩০ জন শিক্ষকই দেশের হাজার হাজার শিক্ষকদের প্রতিনিধিত্ব করছে।