কাদের ভোটে রাজ্যে শক্তি বাড়ালো বিজেপি?বিধানসভায় বাম কংগ্রেসের সঙ্গে বাদানুবাদ মুখ্যমন্ত্রীর

0
Who voted to increase BJP's power in the state?

টাইমস বাংলা নিউজডেস্ক : রাজ্যে বিজেপির ভোট বৃদ্ধি নিয়ে বিধানসভায় বিরোধীদের সঙ্গে তীব্র বাদানুবাদে জড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোন দলের ভোটারদের সমর্থন বিজেপির ঝুলিতে গিয়েছে তা নিয়ে কংগ্রেস ও সিপিএম নেতাদের সঙ্গে বচসা বাঁধে মুখ্যমন্ত্রীর। শুক্রবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যপালের ভাষণের ওপর জবাবি ভাষণ দিতে এসেছিলেন । তার উপস্থিতিতেই বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী ও কংগ্রেসের মুখ্য সচেতক মনোজ চক্রবর্তী রাজ্যে বিজেপির শক্তি বৃদ্ধির জন্য শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে দায়ী করেন। তারা বলেন বাম কংগ্রেসের ভোট বিজেপি তে গেছে বলে অভিযোগ করছেন মুখ্যমন্ত্রী। অথচ ভবানীপুরের মত তৃণমূলের জেতা আসনে বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি হয়েছে। এই ভোটব্যাঙ্ক কাদের, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিরোধীরা।

এর পরেই জবাবি ভাষণ দিতে গিয়ে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন মুখ্যমন্ত্রী। ফের একযোগে সিপিএম-কংগ্রেসকে নিশানা করেন তিনি। কংগ্রেস সিপিএমের ডান হাত বলে প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ নিয়েই।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন,” আজ প্রমাণ হয়ে গেছে কংগ্রেস সিপিএমের রাইট হ্যান্ড। এই জন্যই কংগ্রেস ছেড়েছিলাম। “এরপরই কংগ্রেস বিধায়কদের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রী তিনি বলেন, “গোটা দেশে কংগ্রেস শুন্য হয়ে গেছে। যেখানে যে আঞ্চলিক দল আছে, তারাই বিজেপিকে হারাচ্ছে। যেখানে আঞ্চলিক দল নেই সেখানে কংগ্রেস কিছু ভোট পাচ্ছে তাদের আন্দোলনের জন্য।

সিপিএমের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,” ৩৪ বছর কোনও কাজ করেননি, এর মধ্যেই আবার সরকার করতে উঠেপড়ে লেগে গেছেন। ২০১৬ সালে গোল্লা পেয়েছিলেন, সামনের ভোটে আবার রাজভোগ পাবেন।”

প্রতিদিন মিটিং-মিছিল করছে বিরোধীরা। তাও কেন অভিযোগ করা হয়, অনুমতি দিই না? সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর হচ্ছে, কেন গ্রেফতার নয়? পুলিশ কেন গ্রেফতার করছে না, জানতে চাই।